তেল ছাড়া কি রান্না করা যায়? পোলাও বলেন আর খিচুড়ি তেল ছাড়া রান্না করা এক কথায় অসম্ভব। তবে এই জিনিষটা যদি স্বাস্থ্যকর না হয় তাহলে ঘটতে পারে বিপদ। অপচয় রোধ করতে গিয়ে অনেকেই বার বার তেল ব্যবহার করে থাকেন, এতে করে তেলের যে স্বাস্থ্যগুণ তা নষ্ট হয়ে যায়। তবে পুনর্ব্যবহার করার ও উপায় আছে। এই সকল কথাই জানাবো আজকের পোস্টে। 

 

তেল বার বার ব্যবহার করলে কি ঘটে - 

যে তেলে কড়া ভাজা হয় ওই তেল ব্যবহ্র না করাই ভালো এতে আপনি রোগাক্রান্ত হতে পারেন। তেলে থাকা দূষিত উপাদান আপনার দেহের কোষে প্রবেশ করে নানা রকম স্বাস্থ্যগত সমস্যার কারন হতে পারে। এইসব উপাদান আপনার শরীরে ক্যান্সারের কারন ও হতে পারে। বেড়ে যায় অ্যাথেরোসক্লেরোসিসের ঝুঁকি। এতে বৃদ্ধি পায় দেহের ক্ষতিকর এলডিএল কোলেস্টেরলের পরিমান। বাধাগ্রস্ত হতে পারে রক্তপ্রবাহ। ]এইসব তেলের কারনে এসিডিটি, হৃদরোগ, আলঝেইমার্স, পারকিনসন্স এবং কণ্ঠনালিতে অসুবিধা হতে পারে। তাই এক কথায় এই সব তেল ২য় বার ব্যবহার না করাই ভালো। 

তবে কিছু ক্ষেত্রে করা যায়। এটা নির্ভর করে আপনি কোন ধরনের তেল দিয়ে রান্না করছেন। কিংবা একে কতটা তাপে উত্তপ্ত করা হয়েছে তা-ও গুরুত্বপূর্ণ।

কিন্তু চাইলেই একবার রান্না শেষে বেশ পরিমাণ তেল ফেলে দেওয়া ঠিক নয়। এতে যথেষ্ট অপচয় করা হয়। তাই প্রায় সময়ই তেল একাধিকবার ব্যবহার করতে হয়। আর যদি তা স্বাস্থ্যসম্মতভাবে করতে হয় তবে কিছু বিষয় মেনে চলতে হবে। যেমন বেঁচে যাওয়া তেলটুকু প্রথমেই ঠাণ্ডা করে নিতে হবে। তারপর এটা বাতাস প্রবেশ করতে পারে না, এমন বোতলে সংরক্ষণ করতে হবে। এতে করে যেসব খাদ্যকণা তেলে রয়ে গেছে সেগুলো তেলকে খুব বেশি নষ্ট করতে পারবে না। তেল একবার ব্যবহারের পর এর ঘনত্ব ও রং খেয়াল করুন। যদি এর রং বেশ গাঢ় হয়ে যায়, পিচ্ছিল গ্রিজের মতো হয় এবং তুলনামূলক বেশি ঘন হয়ে থাকে তবে এক্ষুনি ফেলে দিন।