স্বাগতম বিডি সংসার এর রেসিপি সেকশনে। আজ আপনাদের সাথে একটি অন্য রকম রেসিপি সেয়ার করবো। শহরে কলার মোচা তেমন দেখা না গেলেও গ্রামে প্রচুর পাওয়া যায়। তবে খোজ নিলে ঢাকায়ও আপনি পেয়ে যেতে পারেন কলার মোচা। কলার মোচা বা থোড় রান্না করলে কিন্তু খুব মজা লাগে। গরম ভাতের সাথে মাছ দিয়ে এই মোচা রান্না ভালো লাগে। তবে চিংড়ি মাছ দিয়ে মোচার ঘন্ট রান্না করলে মুখ ফিরবে না। আজ আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি কলার মোচা রান্না করার প্রনালী। আসুন তাহলে দেখে নেই। 

উপকরণ : ১ টা বড় সাইজের মোচা, পিয়াজকুঁচি ২ কাপ ( ডিনার সেটের কাপ), রশুনকুঁচি ১ কাপ, কাঁচামরিচ ১ কাপ, আাদাবাটা ২ টে- চামুচ, হলুদগুড়া ১ টে- চামুচ, ভাজা জিরারগুড়া ১ টে – চামুচ, ধনেরগুড়া ২ টে- চামুচ, এলাচ, দারুচিনি ৪/৫ টা করে, গরমমশল্লার গুড়া ১ চা – চামুচ, মরিচগুড়া ১ টে- চামুচ, শরিষার তেল বা সোয়াবিন আধা লিটার, লবন স্বাদমত ও ইলিশ মাছ মাঝারি সাইজের ( বা ইচ্ছামত ) ।

প্রনালি : প্রথমে কলার মোচা কেটে পরিস্কার করে নিন। মোচা ছেলে কচি অংশ বের করে নিন। এবার এই অংশ ছোট ছোট টুকরা করে কেটে সেদ্ধ করে নিন। ইলিশ মাছ কেটে ধুয়ে নিন। মোঁচা সেদ্ধ হয়ে গেলে ঝাঁকাতে ঢেলে পানি ঝড়াতে দিন। এবারে শিলপাটাতে শুকনা অবস্থায় বেটে নিতে হবে মসৃণ করে। ( এখানে বলে রাখা ভালো ব্লান্ডারে করলে মসৃণ হবে কি না জানিনা আমি বেটেই সবসময় করে থাকি). কড়ায়ে তেল ঢেলে দিন গরম হলে পিয়াজ রশুন মরিচ দিয়ে একটু লাল করে নিতে হবে। ইলিশ মাছের টুকরাগুলো দিয়ে নেড়ে সমস্ত মশল্লা এক এক করে দিয়ে ভালো করে নেড়েনেড়ে মিশিয়ে নিতে হবে। তারপর পেষা থোর বা মোচা ঢেলে দিতে হবে কিছুখন নেড়ে নেড়ে সমস্ত মশল্লার সাথে মাখিয়ে নিতে হবে। জ্বাল কম করে দিতে হবে তা না হলে নিচে ধরে যাবে। কিছুক্ষণ নেড়ে নেড়ে ভাজা ভাজা করে চুলা বন্ধ করে বসিয়ে রাখুন। এভাবে আবার কিছুক্ষণ নাড়ুন চুলা বন্ধ করে দিন।

এভাবে কয়েক দফায় ভাজা ভাজা করতে হবে। যখন দেখবেন থোড় বা মোচা কড়ায় ছেড়ে আসছে তেল বের হয়ে আসছে। আপনি বুঝতেই পারবেন। যত ভাজাভাজা হবে তত মজা হবে। এবারে ভাজা জিরার গুড়া, গরমমশল্লার গুড়া দিয়ে নেড়ে নামিয়ে নিন সুন্দর একটা ঘ্রান বের হবে।