ওজন কমানো নিয়ে টেনশনে ভুগছেন? কিছুতেই কমছে না ওজন। ওজন বাড়লে যেমন সুন্দর্য হানি হয় তেমন শরীরে নানা রোগ বাসা বাধে। অতিরিক্ত ওজন কমাতে যে এক্সারসাইজই করুন না কেন, সঠিক ডায়েট প্ল্যান কিন্তু অত্যন্ত জরুরী।

বিডি সংসারের পাঠকদের জন্য আজ একটি বিশেষ ডায়েট চার্ট । এক মাস এই ডায়েট চার্ট ফলো করলে ওজন কমবে অন্তত ৫ কেজি।

আদর্শ ডায়েট চার্ট
সকাল - সকালে এক গ্লাস উষ্ণ গরম পানিতে লেবু চেপে খেয়ে ফেলুন, এতে ফ্যাট বার্নে সাহায্য করবে। এর মিনিট ১০ পরে এক বোতল পানি খেয়ে নিন। এতে শরীরের টযিন বের হয়ে যাবে। তারো ১০ মিনিট পর চিনি ছাড়া এক কাপ লিকার চা খেতে পারেন। গ্রিন টি হলে আরও ভালো হয়। সাথে খেতে পারে ফাইবার বিস্কিট অথবা ক্রিম ক্র্যাকার।

চা খাওয়ার ৩০ মিনিট পর ব্রেক ফাস্ট করবেন। অল্টারনেট দিনে আলাদা আলাদা ব্রেকফাস্ট করতে হবে। এক দিন কর্ন ফ্লেক্স খেলে অন্য দিন স্যান্ডউইচ খেতে পারেন। স্যান্ডউইচ অবশ্যই মাখন, চিজ, মেওনিজ ছাড়া খাবেন। তবে শসা, টমেটো দিয়ে খেতে পারেন। তবে এক্টার বেশি স্যান্ডউইচ খাবেন না। দুট ডিমের কুসুম বাদে শুধু সাদা অংশ খাবেন। পরেরদিন একটা ছোট বাটিতে টোন্ড বা ডাবল টোন্ড দুধে চিনি ছাড়া কর্নফ্লেক্স মিশিয়ে খাবেন।

ব্রেকফাস্টের ২ ঘন্টা পর একটা আপেল বা পেয়ারা খেতে পারেন।

লাঞ্চে খাবেন ৯০ গ্রাম চালের ভাত বা দুটি রুটি, এক পিস মাছ , দুই ধরনের সবজি, টক দই ও একটি শসা।

লাঞ্চের ২ ঘন্টা পর আবার একটি ফল খাবেন।

তার ২ ঘন্টা পর এক কাপ চিনি ছাড়া চা, সাথে ২টি, ক্রিম ক্র্যাকার বিস্কিট খেতে পারেন।

রাত সাড়ে ৮টার মধ্যে অবশ্যই ডিনার সেরে ফেলুন। ডিনারে ২টি রুটি, এক বাটি সবজি, বা স্যুপ বা চিকেন খাবেন। খাওয়া শেষে একটা গোটা শসা অবশ্যই খাবেন।

সপ্তাহে ২ দিন একটি করে রসগোল্লা, বা ডার্ক চকলেট খেতে পারেন। তবে ডায়েটের এক মাস কোন রকম জাঙ্ক ফুড বা কোল্ড ড্রিঙ্কস খাওয়া চলবে না।

এটা তো গেলো ডায়েট প্ল্যান, ডায়েটের সাথে কিছু এক্সারসাইজও জরুরী। ফ্রান্ট ক্রাঞ্চ, সাইড ক্রাঞ্চ, হিপ এক্সারসাইজ়, হ্যান্ড এক্সারসাইজ়, ব্রিদিং এক্সারসাইজ়, ইত্যাদি নিয়ম মেনে করতে হবে । রোজ বিকেলে বা সকালে আধ ঘণ্টা হাটুন। রোগা হওয়া থেকে কেউ আটকাতে পারবে না।