আমাদের মাঝে অনেকের ধারণা রয়েছে যে রোজা রাখলেই হয়তো ওজন কমে। তাই অনেকেই রোজা রাখেন ঠিকই কিন্তু ইফতারে প্রচুর পরিমানে তৈলাক্ত ও ভাজাপোড়া, মিস্টি খাবার খেয়ে ফেলেন। আবার অনেকেই ভাবেন সেহরি না করে রোজা রাখলে হয়তো ওজন নিয়ন্ত্রনে আসবে। আসলে এগুলো কোনটি ওজন কমানোর কাজে লাগে না। বিশেষজ্ঞরা অবশ্য অন্য কথা বলছেন, সে সব কিছু টিপস তুলে ধরা হলো আপনাদের জন্য।

সব সময় মনে রাখতে হবে সেহরি ও ইফতারে বেশি ঝাল মশলাযুক্ত খাবার খাওয়া যাবে না। এই সব তৈলাক্ত ও মসলাদার খাবারের পরিবর্তে প্রচুর পরিমানে সবজি ও ফল খেতে পারে। প্রোটিনের চাহিদা পুরনে হালকা মাংস খেতে পারেন। বিফ ও মাটন এডিয়ে চলবেন।


আরও পড়ুন - রমজান মাসে ওজন কমাতে ডায়েট চার্ট


সেহরি না করে কখনোই রোজা রাখবেন না। সেহরি দিনের প্রথম খাবার। এই খাবার আপনাকে সারাটা দিন কর্মক্ষম রাখবে এবং শরীরে প্রয়োজনীয় শক্তির যোগান দেবে। এই খাবার না খেলে বিপাক হার কমে যেতে পারে। ফলে মেদ পুড়বে কম।

সেহরি ও ইফতারে প্রচুর পরিমানে পানি পান করুন। রোজার সময় শরীরের আদ্রতা ধরে রাখা খুব জরুরী। এটা ওজন কমাতে কাজ করে।

সেহরি ও ইফতারে আঁশযুক্ত ও পর্যাপ্ত পরিমানে প্রোটিন খাবার খাবেন। প্রোটিন, চর্বি ও আঁশ খেলে এটা বিপাক প্রক্রিয়াকে ভালো রাখবে এবং ক্যালোরি পুড়তে সাহায্য করবে।

রোজা রেখে সারা দিন শুয়ে বসে থাকবেন না। সারা দিন কিছু না কিছু করার চেস্টা করুন। হালকা ব্যায়াম করতে পারেন। রোজার পাশাপাশি হালকা ব্যায়াম আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করবে।

সব থেকে গুরুত্বপূর্ন বিষয় হচ্ছে মিস্টি জাতীয় খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাবেন। মিস্টির পরিবর্তে, ফল, ফ্রেস জুস ও খেজুরের রস খেতে পারেন।

বিভিন্ন রকম ভারি খাবার, যেমন পোলাও ,বিরিয়ানী সহ ফাস্ট ফুড থেকে বিরত থাকুন।