ফুচকা মেয়েদের বিশেষ প্রিয় খাবার। বিকেলের আড্ডায় বা কোন অকেশনে বাইরে গেলে ফুচকা চাই চাই। আবার একটু বৃষ্টি পড়লে ফুচকা খাওয়ার মজা আরও বেড়ে যায়। বেশ ঝাল ঝাল দিয়ে ফুচকা ছোট বড় সবাই পছন্দ করেন। আজ ফুচকা তৈরি করার রেসিপি শেয়ার করছি আপনাদের সাথে। আসুন দেখে নেই কিভাবে তৈরি করবেন ফুচকা। 

উপকরণ - ডাবলি মটর-৫০০ গ্রাম, খাওয়ার সোডা/ তালমাখনা ১ চা চামচ, বড় আলু-২টি, ডিম-২টি, চটপটি মসলা-পরিমাণমতো, মরিচ টালা গুঁড়া-পরিমাণমতো, ভাজা জিরা গুঁড়া-১ টেবিল চামচ চামচ, লবণ-পরিমাণমতো, শসা-২টি, টমেটো-২টি, চিনি-১ টেবিল চামচ চামচ, বিঁচি ছাড়া তেঁতুল-২০০ গ্রাম, বিট লবণ-১ চা চামচ, পেঁয়াজ কুচি-আধা কাপ, কাঁচামরিচ কুচি-২ টেবিল চামচ চামচ, ধনেপাতা-১ আঁটি, ফুচকা-১৫ থেকে ২০টি।

প্রনালী - ফুচকার ৩টি অংশ থাকে। সেগুলো হলো, ফুচকা, ফুচকার পুর, আর তেতুলের টক। আমরা ৩ ধাপেই ফুচকা তৈরি করার প্রণালী দেখাবো। আসুন দেখে নেই। 

ফুচকা তৈরি -২কাপ ময়দার সাথে পানি, লবন, সরিষার গুড়া এক সাথে মিশিয়ে মোলায়েম করে মাখিয়ে ইন। তার পর ছোট ছোট রুটির মতন করে বেলে কেটে ফেলুন। ডুবো তেলে বাদামি করে ভেজে উঠিয়ে রাখুন। আপনি চাইলে বাইরে থেকে ফুচকা কিনেও আনতে পারেন। তবে বাসায় তৈরি করা ফুচকা হবে আরও স্বাস্থ্যকর। 

ফুচকার পুর তৈরি - মটরের ডাল  ৫-৬ ঘন্টার জন্য ভিজিয়ে রাখুন। এবার কুচি করে কাঁটা সেদ্ধ আলু ও মটরের সাথে ২ টেবিল চামচ, আদা বাটা, রসুন বাটা, জিরা বাটা, গরম মশলা ও তেল দিয়ে ভালো করে রান্না করুন। এই ডালের সাথে দিয়ে দিন ভাজা শুকনা মরিচের গুড়া, চটপটি মশলা, পেঁয়াজ কুচি ও তেতুলের টক। সকম কিছু ভালো করে মিশিয়ে নিন। 

তেতুলের টক - ১ ঘন্টা আগে ভিজানো তেতুলের সাথে কুচি করে কাটা ধনে পাতা,কুচি করে কাটা কাচা মরিচ ও বীটলবণ দিয়ে ভালো করে চটকিয়ে নিলেই হয়ে যাবে তেতুলের টক।

ভাজা ফুচকার ভিতর পুর ভরে ফুচকা তৈরী করুন এবং আলাদা ভাবে টক দিয়ে পরিবেশন করুন। কুচি করা ধনে পাতা,কুচি করা ডিম ফুচকার উপর ছড়িয়ে দিন।হয়ে গেল মজাদার ফুচকা রেসিপি।