স্বাগতম বিডি সংসার এর টিপস সেকশনে। রান্নাঘরের ২৫টি সেরা টিপস নিয়ে আজকের আয়োজন। রান্নার পর হাত জলে? তরকারিতে হলুদ বেশি হয়েছে, হলুদের গন্ধ আসছে? কলা কালচে যেন না হয় বা নষ্ট ডিম চেনার উপায়, এই রকম নানা টিপস নিয়ে আজকের আয়োজন। তো আসুন দেখে নেওয়া যাক। 

মশলা বাটিতে না রেখে আইস বক্সে আইস কিউব করে রাখতে পারেন। তাতে বার বার মসলা গলানোর ঝামেলা থেকে মুক্তি পাবেন। আইস বক্সে আইস কিউব করে এই কিউব গুলো আলাদা একটি বক্সে রেখে দিন। যখন মসলার প্রয়োজন হবে একটি কিউব বের করে নিয়ে ব্যবহার করলেই হলো। 

ধনিয়াপাতা দ্রুত পচে যায়। সেক্ষেত্রে একটি কাজ করতে পারেন। ধনিয়াপাতার গোড়া ফেলে দিয়ে ভালো করে পানি শুকিয়ে নিন। এবার একটি বক্সে কিচেন টিস্যু বিছিয়ে তার উপর ধনিয়া পাতা দিয়ে বক্সের মুখ আটকিয়ে দিন। দেখবেন অনেক দিন তাজা থাকবে এই পাতা। 

আদা বাটতে গেলে বা ব্লেন্ড করতে গেলে আঁশ থেকে যায়। এই সমস্যা থেকে মুক্তির উপায় হচ্ছে, বাটার আগে বা ব্লেন্ড করার আগে গ্রেটার দিয়ে গ্রেট করে নিন। দেখবেন বাটার সময় এই আঁশ ভাব আর থাকছে না। 

রান্না করার পর হাত জ্বালা পোড়া করছে? তাহলে এ ক্ষেত্রে কাজে দিতে পারে পুই শাকের পাতা। পুইশাকের পাতা একটু চিপে নিয়ে সারা হাতে মাখিয়ে নিন। কিছু সময় পর দেখবেন জ্বালা পোড়া কমে গিয়েছে। 

তরকারিতে হলুদ বেশি হয়ে গিয়েছে? দিয়ে দিন কয়েকটি পুইশাকের পাতা। দেখবেন হলুদ একদম কমে এসেছে আর তরকারির স্বাদেরও কোন পরিবর্তন আসছে না। 

তরকারিতে হলুদ বেশি হয়ে গেলে একটা গন্ধ আসে, সেক্ষেত্রে আপনি লোহার খুন্তি গরম করে তরকারিতে ধরতে পারেন। দেখবেন গন্ধ একদম নেই। 

কলা রেখে দিলে কালচে হয়ে যায়! তাহলে ফয়েল পেপার নিয়ে কলার বোটার অংশ মুড়িয়ে রাখুন, দেখবেন কলা দীর্ঘদিন ভালো থাকছে। 

দীর্ঘদিন লেবু সতেজ রাখতে চান? প্রতিটি লেবু খবরের কাগজে মুড়িয়ে একটি এয়ারটাইট বক্সে ভরে ফ্রিজে রাখুন, দেখবেন লেবু দীর্ঘদিন ভালো থাকবে। 

নষ্ট ডিম বুঝার সহজ উপায় হচ্ছে পানিতে নষ্ট ডিম ছেড়ে দিলে ডিম ভেসে উঠবে। 

প্রেসার কুকার ব্লাস্ট হওয়ার ঘটনা প্রায়ই ঘটে থাকে। এর জন্য দায়ী প্রেসার কুকারের ঢাকনার নিচে থাকা ছিদ্রগুলো। এগুলো ঠিক মতন পরিস্কার না করলে এগুলা জ্যাম হয়ে যায়। তখন ঘটে বিপত্তি। 

মুগের ডাল সংরক্ষণ করতে চাইলে হালকা ভেজে এয়ারটাইট বোয়েমে ভরে রাখুন। এভাবে রাখলে দীর্ঘদিন ভালো থাকবে মুগের ডাল। 

বুন্দিয়া প্রতিদিন তৈরি করা বেশ ঝামেলার। তবে আপনি চাইলে একদিন বেশি করে বানিয়ে প্রতিদিন ব্যবহার করতে পারবেন। এই বুন্দিয়া একটি কিচেন টিস্যুর উপরে রেখে এয়ারটাইট বক্সে রেখে দিন। তবে মনে রাখবেন বুন্দিয়া সংরক্ষণ করার আগে সিরায় দেওয়া যাবে না। যেদিন খাবেন সেদিন সিরায় দিয়ে নেবেন। 

সিজিনের সময় লেবুর দাম কম থাকে। তাই লেবু চিপে রস করে ছেকে নিন। এই রস আইস কিউব করে রেখে দিন। ফ্রিজে ৮-১০ ঘন্টা রাখার পর কিউব গুলো ছাড়িয়ে নিন। এই কিউব একটি বক্সে রেখে ডিপ ফ্রিজে রেখে দিন। দীর্ঘদিন ভালো থাকবে লেবুর রস।

কাচা আম কিভাবে সংরক্ষণ করবেন? কাচা আম ভালো করে খোসা ছাড়িয়ে কেটে ধুয়ে নিন। এবার একটি পাত্রে পানি দিয়ে তার ভিতর আম গুলো ডুমো করে কেটে নিন। চাইলে ফালি করেও কাটতে পারেন। এতে দিয়ে দিন ১ টেবিল চামচ ভিনেগার ও এক চা চামচ চিনি। ১০ মিনিট এভাবেই রেখে দিন। এই আম একটি এয়ারটাইট বক্স বা জিপ লকার বক্সে রেখে দিন। এই আম ভালো থাকবে দীর্ঘদিন। 

রান্না করার পর হাত এ একটা গন্ধ হয়। আবার হাতের নখও অপরিস্কার হয়। তাই ব্যবহার করা লেবু দিয়ে নখ ভালো করে ঘসে নিন। হাতেও লেবু ঘসে নিন। দেখবেন নখ হয়েছে পরিস্কার। আর হাতেও কোন গন্ধ নেই।