ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪ আপডেট প্রায় ১ মাস আগে

জনপ্রিয়

টনসিলের ঘরোয়া চিকিৎসা

ডেস্ক ২৭ জানুয়ারী ২০১৯ ১২:০০ ঘটিকা ৮০

শীতে যে সকল রোগ ভোগায় তার ভিতর টনসিল এর সংক্রমণ অন্যতম। জিভের পিছনের প্রন্তে, গলার দুইপাশে যে গোলাকার পিন্ড থাকে, এটিই টনসিল। মুখ, নাক ও গলা থেকে কোন জীবাণু যেন শরীরের ভিতরে যেতে না পারে সে দিকে খেয়াল রাখাই টনসিল এর কাজ।  

সাধারনত ঠান্ডা লাগলে টনসিলের সংক্রমন হয়ে থাকে। টনসিলের সংক্রমন হলে কথা বলতে অসুনিবাদ হয়, এমনকি গলায় ব্যাথার কারণে কাশতে গেলেও কষ্ট হয়। টনসিলের ব্যাথা কমাতে নানা রকম ওষুধ রয়েছে। তবে ঘরোয়া পদ্ধতিতেও এর মোকাবেলা করা যায়। জনপ্রিয় পত্রিকা আনন্দ বাজার অবলম্বনে থাকলো ঘরোয়া ভাবে টনসিলের উপশমের কিছু পদ্ধতি। 

টনসিলের কারন - 

  • টনসিল সাধারনত কমোন কোল্ড ও অনান্য ভাইরাসের আক্রমনের কারণে হয়ে থাকে।
  • ১৫-২০ ভাগ টনসিল বিভিন্ন ধরনের ব্যাকটেরিয়ার আক্রমনের কারণে হয়ে থাকে। স্ট্রেপ্টোকক্কাল ব্যাকটেরিয়ার কারণে স্ট্রেপ্টো থ্রোট নামক রোগ হয়ে থাকে। এই রোগ অবহেলা করলে পরবর্তীতে তা মারাত্মক আকার ধারন করতে পারে। 

টনসিলের লক্ষণ -

  • টনসিলের সংক্রমন হলে, ২দিনের বেশি সময় ধরে গলায় ব্যাথা থাকবে।
  • খাবার গিলতে ব্যাথা হয়।  
  • গলা ফুলে যায়, মাঝে মাঝে মনে হয় গলা ফুলে পুজ হয়েছে। 
  • গলার স্বরে পরিবর্তন আসতে পারে।
  • স্ট্রেপ্টোকক্কাল টন্সিলাইটিসের ক্ষেত্রে শিশুদের জ্বর, মাথা ব্যাথা, পেটে ব্যাথা হয়।
  • খাবারে অরুচি দেখা দিতে পারে।

টনসিলের ঘরোয়া চিকিৎসা -

ঘরোয়া কয়েকটি পদ্ধতিতে টনসিল উপশম করা যায়। নিচে একে একে পদ্ধতি গুলো উল্লেখ করলাম। 

লবন জল এর মিশ্রণ:

এক গ্লাস উষ্ণ গরম পানিতে লবন দিয়ে মিশিয়ে নিন। এই পানি দিয়ে গারগিল করুন। চাইলে ভেপার ও নিতে পারেন। সরাসরি পাখার হাওয়া থেকে দূরে থাকার চেস্টা করুন। 

লেবু মধুর মিশ্রণ ঃ 

এক গ্লাস উষ্ণ পানিতে একটি পাতি লেবুর রস দিয়ে দিন, তাতে ১ চামচ মধু ও সামান্য লবন মিশিয়ে নিন। এই পানিয় দিনে ২-৩ বার গ্রহণ করুন। 

দুধ ও হলুদের মিশ্রণ ঃ 

এক কাপ গরম দুধে সামান্য হলুদ মিশিয়ে নিন। হলুদ অ্যান্টিইনফ্লেমটরিএবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। গলা ব্যথা দূর করতে এর জুড়ি মেলা ভার। তাই হলুদ মেশানো গরম দুধ যেমন সর্দি-কাশি দূর করে, তেমনই টনসিলের ব্যথা দূর করতেও বিশেষ কার্যকর।

আপনার জন্য নির্বাচিত »

স্বাস্থ্য থেকে আরও খবর »