অনেক শিশুকে দেখা যায় চা খাওয়ার জন্য বায়না ধরে। আর শিশুর বায়না দেখে আমরাও শিশুর হাতে তুলে দেই চা। কিন্তু জানেন কি এই চা আপনার শিশুর জন্য হতে পারে ক্ষতির কারণ। দুধ চা বা বিস্কিটের সাথে চা দিলেও তা শিশুর জন্য ক্ষতিকর।

চা শিশুদের জন্য মোটেও স্বাস্থ্যকর পানীয় নয়। এমন কথাই জানান ন্যাচারোপ্যাথিক নিউট্রোশনিস্ট ও “ডোন্ট জাস্ট ফিড….নারিশ ইয়োর চাইল্ড” বইটির লেখক ধাওয়ানি শাহ।

তার মতে চা বড়দের পানীয়। চায়ের উপাদান শিশু কিশোরদের ক্যালসিয়াম শোষন প্রক্রিয়া ব্যহত করে। যার ফলে শিশুর ক্যালসিয়াম ঘাড়তি দেখা যায়। এমনকি নিয়মিত চা পান করলে শিশুর মস্তিষ্ক, পেশী, স্নায়ুতন্ত্র এবং বৃদ্ধি প্রভাবিত হয়।

শিশুকাল থেকে চা পান করলে শিশুদের যে সকল পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলো দেখা দেয় সেগুলো হলো, হাড়ের ঘনত্ব কমে যাওয়া, শরীর ব্যথা হতে পারে, মনোযোগের ঘাটতি হতে পারে, যার কারনে বিরক্তি ও অন্যান্য আচরণগত সমস্যা দেখা দেয়। শিশুর পেশি শক্তি কমে যায়।

চায়ের সাথে দুধ মেশালে কি ভালো হয়?
অনেক মা-ই মনে করেন চায়ের সাথে দুধ দিলে শিশুদের দুধ খাওয়ানোর জন্য চাপাচাপি করতে হয় না, আবার দুধ ও খাওয়া হয়। অর্থাৎ তার দুধ খাওয়া হয়ে যাচ্ছে, আসলে ঘটনা তা নয়, দুধে মধ্যে কয়েক ফোটা চা দুধের গুনাগুন নষ্ট করতে যথেষ্ট।

আমরা জানি চায়ে ক্যাফেইন রয়েছে, ক্যাফেইন উদ্দীপক হিসেবে কাজ করে। অল্প মাত্রায় সেবনে মানুষকে এনার্জেটিক করে। কিন্তু বেশি মাত্রার ক্যাফেইন শিশু অ বয়স্কদের জন্য মোটেই ভালো নয়। এর কারনে পেটের অসুখ, মাথা ব্যথা, ঘুমের সমস্যা থেকে শুরু করে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যাও হতে পারে। তাই এই সব সমস্যা দূরে রাখতে অবশ্যই আপনার শিশুকে চা দেবেন না।

তাহলে কি দেবেন?
শিশু যদি বায়না ধরে তাহলে, চায়ের কাপে চকলেট মিল্ক দিতে পারেন।